Thursday , June 21 2018
Breaking News

আপনি কি জানেন বিশ্বকাপের প্রাইজ মানি কত? না জানলে জেনে নিন

আর কদিন পরই ফুটবল উন্মাদনায় মাতবে গোটা বিশ্ব। শিরোপার জয়ের মিশনে রাশিয়ায় লড়াই করবে ৩২টি দল। এবারের ফিফা বিশ্বকাপে মোট প্রাইজ মানি ৪০০ মিলিয়ন ডলার। অংশগ্রহণকারী প্রতিটি দলই টুর্নামেন্টে তাদের অবস্থান অনুযায়ী প্রাইজ মানি পাবে।

এর মধ্যে চ্যাম্পিয়ন দল প্রাইজ মানি হিসাবে পাবে ৩৮ মিলিয়ন ডলার তথা তিন কোটি ৮০ লাখ ডলার। আর রানার আপ দল পাবে ২৮ মিলিয়ন ডলার তথা দুই কোটি ৮০ লাখ ডলার। তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দল পাবে ২৪ মিলিয়ন ডলার। চতুর্থ স্থান অর্জনকারী দল পাবে ২২ মিলিয়ন ডলার।

যারা কোয়ার্টার ফাইনাল পর্ব থেকে বিদায় নিবে তারা পাবে ১৬ মিলিয়ন ডলার করে। আর দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নেয়া দলগুলো পাবে ১২ মিলিয়ন ডলার করে। গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয়া প্রতিটি দল পাবে আট মিলিয়ন ডলার করে।

বিশ্বকাপে যে ৩২ দল অংশ নিবে: রাশিয়া, জার্মানি, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, কলম্বিয়া, উরুগুয়ে, পেরু, কোস্টারিকা, পানামা, মেক্সিকো, সেনেগাল, নাইজেরিয়া, মিশর, তিউনিশিয়া, মরক্কো, ইরান, দক্ষিণ কোরিয়া, সৌদি আরব, জাপান, অস্ট্রেলিয়া, স্পেন, পর্তুগাল, ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড, ইংল্যান্ড, বেলজিয়াম, সার্বিয়া, ক্রোয়েশিয়া, পোল্যান্ড, আইসল্যান্ড, ডেনমার্ক, সুইডেন।

হোক বিশ্বকাপ!! তাই বলে এই ধরনের বিধি-নিষেধ জার্মান খেলোয়াড়দের উপর??

পাকাপোক্ত ভাবেই মাঠে বিশ্বকাপ মিশনে মাঠে নামছে জামার্নি। জয় ছাড়া কিছুই যেন ভাবছে না দলটি। এজন্য খেলোয়াড়দের ওপর যেকোনো ধরনের বিধি-নিষেধ আরোপ করেত রাজি জার্মানির কোচ জোয়াকিম লো। তাই আগেভাগেই তিনি জানিয়ে দিলেন, বিশ্বকাপ চলার সময় তার দলের ফুটবলাররা স্ত্রী-সন্তান কিংবা গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে থাকতে পারবেন না। তবে ঘুমানোর আগে অ্যালকোহল পানে নেই আপত্তি।

বিশ্বকাপের সময় কোনো ছাড় নয়। খেলোয়াড়দের শারীরিক সম্পর্কের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে জার্মান কোচের পরিষ্কার ঘোষণা, ‘আত্মার চেয়ে দল বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’
যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য সানের খবরে বলা হয়, জার্মানির খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপের প্রস্তুতির সময় স্ত্রী, সন্তান আর গার্লফ্রেন্ডকে সঙ্গে রাখতে পারবেন। কিন্তু টুর্নামেন্ট চলার সময় পারবেন না। তবে এতটাও কঠোর নন জোয়াকিম লো। শিষ্যদের অ্যালকোহল পানে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছেন না। বিশ্বকাপ চলার সময়ও রাতে সেটা পান করতে পারবেন যার ইচ্ছে।
এছাড়া টুর্নামেন্ট চলার সময় হোটেল কিংবা লকার রুম থেকে কোনো ধরনের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করতে পারবেন না জার্মান খেলোয়াড়রা। যদি এমন কিছুর প্রমাণ মেলে, তবে দল থেকে বাদ পড়ার ঝুঁকিতে থাকবেন সেই খেলোয়াড় কিংবা খেলোয়াড়রা।
কোচ জোয়াকিম লো বলেন, ‘আমাদের ছেলেরা আচরণগত নির্দেশগুলো ভালোমতোই জানে। তারা আমাদের লক্ষ্য জানে, কাজ সম্পর্কেও জানে। আমরা একটা পাজলের অংশ, মেলাতে না পারলে কেউই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে পারবে না। সবাইকে দলে তাদের দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে। আত্মার চাহিদাকে অবশ্যই আটকে রাখতে হবে।’

এবার মেসিদের জেরুজালেমের মাঠে না খেলার আহ্বান!! জেনে নিন বিস্তারিত।

রাশিয়ায় বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর শুরু হচ্ছে ১৪ জুন থেকে। এর আগে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো শেষবারের মত প্রীতি ম্যাচে অংশ নিয়ে নিজেদের ঝালিয়ে নিচ্ছে। এবারের আসরের অন্যতম ফেভারিট দল আর্জেন্টিনাও এর ব্যতিক্রম নয়। তারা দুটি ম্যাচ খেলবে। এর একটি ম্যাচের তারিখ রয়েছে ৯ জুন জেরুসালেমের মাঠে, প্রতিপক্ষ ইসরাইল।

তবে ফিলিস্তিনের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (পিএফএ) আর্জেন্টিনার প্রতি জেরুজালেমে এই ম্যাচ না খেলার আহ্বান জানিয়েছে।

ফিলিস্তিনের দাবি, ভেন্যু নির্বাচনের মাধ্যমে ইসরাইল খেলাকে রাজনীতির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে।

ইসরাইল ও আর্জেন্টিনার প্রীতি ম্যাচের জন্য নির্বাচন করা হয়েছে জেরুজালেমের টেডি স্টেডিয়ামকে। এখানে এক সময় ফিলিস্তিনের একটি গ্রাম ছিল।

দখলদার ইসরাইলের সেনাবাহিনী ১৯৪৮ সালে স্টেডিয়ামটি তৈরির সময় ফিলিস্তিনের গ্রামটি ধ্বংস করে দেয়। তাই ভেন্যু নিয়ে প্রতিবাদ জানিয়ে পিএফএ সভাপতি জিব্রিল রাজৌব আর্জেন্টাইন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এএফএ), সাউথ আমেরিকান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ও ফিফার কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন।

চিঠিতে তিনি খেলাকে রাজনীতির অংশ বানানোর অভিযোগ তুলেছেন ইসরাইলের বিপক্ষে, ‘ইসরাইল, দখলকারী ক্ষমতা, খেলার নীতি ভেঙে বৈশ্বিক আদর্শ ও মান লঙ্ঘন করেছে।’

তার মতে, আর্জেন্টিনা দল এই ম্যাচ খেললে নৈতিক ও খেলায় সম্মান হারাবে।

জিব্রিল রাজৌব ভাষ্যে, ইসরাইল আর্জেন্টাইন জনগণকেও ভুল তথ্য দিচ্ছে, ইহুদিদের জন্য ‘ইউনাইটেড জেরুজালেম’ বলে তারা আর্জেন্টাইন জনগণকে ভুল তথ্য দিচ্ছে।

তাই তিনি এই ভেন্যুতে ম্যাচটি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।

ম্যাচটির আয়োজক ড্যানিয়েল বেনাইম এবং ইসরাইল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের ওয়েবসাইট অনুযায়ী ৬ লাখেরও বেশি মানুষ এই ম্যাচের টিকিট কিনতে আগ্রহ দেখিয়েছে। অন্যদিকে স্টেডিয়ামের ধারণক্ষমতা মাত্র ৩১ হাজার ৭৩৩ জন।

সূত্র : আল-জাজিরা।

Facebook Comments