Thursday , June 21 2018
Breaking News

এশিয়া কাপে প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন, দুর্দান্ত খেলায় ম্যান অফ দা ম্যাচ হয়েছেন যিনি……

শেষ ওভারের চাপ জয় করে ভারতকে হারিয়ে এশিয় কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, শেষ ওভারে জিততে দরার ছিল ৯ রান হাতে ছিল ৫ উইকেট , ক্রিজে ছিলেন সানজিদা এবং রুমানা দ্বিতীয় বলে চার মারেন রুমানা কিন্তু চতুর্থ বলে বাউন্ডারিতে ক্যাচ আউট হন সাঞ্জিদা , শেষে দুই বলে দরকার পরে ৩ রান এরপর এক বল আগে রান আউট হন রুমানা , এক বলে ২ রান দরকার হলে জাহানারা ইসলাম ২ রান নিয়ে ম্যাচ জিতে নেন। ২০ ওভারে বাংলাদেশ ৭ উইকেট হারিয়ে নিজেদের ১ম ফাইনাল জিতে ইতিহাস সৃষ্টি করে বাংলাদেশের মেয়েরা

প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপ জয়ের স্বপ্ন নিয়ে মালয়শিয়ার কুয়ালালামপুরে ভারতের বিপক্ষে খেলতে নামে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। আর এই এশিয়া কাপের ফাইনালে হারমানপ্রীত কাউরের দলকে মাত্র ১১২ রানে বেঁধে ফেলতে সক্ষম হয়েছে রুমানা সালমারা।

মামুলি এই লক্ষ্যে খেলতে নেমে স্পিনার একতা বিস্তের প্রথম ওভারটি দেখে শুনে খেললেও দ্বিতীয় ওভারেই হাত খুলে খেলা শুরু করেন ওপেনার আয়েশা রহমান। পেসার শিখা পান্ডের করা সেই ওভারের তৃতীয় এবং চতুর্থ বলে পর পর দুইটি চার মারেন আয়েশা।

তবে দুই বল হাতে থাকলেও সেই ওভারে পায়ে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন ভারতীয় পেসার শিখা। এরপর থেকে দারুণ বুঝে শুনে খেলা শুরু করেন দুই ওপেনার আয়েশা এবং শামিমা। দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ের ছাপ ফুটিয়ে তুলে দলকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যাচ্ছিলেন তারা।

কিন্তু দলীয় সপ্তম ওভারে বোলিংয়ে এসে টাইগ্রেসদেরকে বিপদে ফেলে দেন ভারতীয় স্পিনার পুনম যাদব। আয়েশা রহমানকে ঝুলন গোস্বামীর হাতে ক্যাচ বানিয়ে সাজঘরে ফেরত পাঠান পুনম। এর ঠিক পরের বলেই শামিমা সুলতানাকেও একই কায়দায় আউট করেন তিনি।

অবশ্য এরপর দুই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান ফারজানা হক এবং নিগার সুলতানা ব্যাটিংয়ের হাল ধরে দলকে কিছুটা বিপদ মুক্ত করেছেন।

কিন্তু আবার সেই পুনম যাদবের বলেই কিপারের কাছে ক্যাচ দিয়ে ১১ রানে আউট হন ফারজানা। এরপর সেই পুনম যাদবের বলেই বেরিয়ে এসে মারতে গিয়ে লেগে ক্যাচ দিয়ে ২৭ রানে আউট হয়ে ফিরে যান দুর্দান্ত খেলতে থাকা নিগার সুলতানা। এরপর ১৭ তম ওভারে ৯ রান করে হারমান প্রীতের বলে স্ট্যাম্পিং হয়ে আউট হন ফাহিমা।

শেষ ওভারে জিততে দরার ছিল ৯ রান হাতে ছিল ৫ উইকেট , ক্রিজে ছিলেন সানজিদা এবং রুমানা দ্বিতীয় বলে চার মারেন রুমানা কিন্তু চতুর্থ বলে বাউন্ডারিতে ক্যাচ আউট হন সাঞ্জিদা , শেষে দুই বলে দরকার পরে ৩ রান এরপর এক বল আগে রান আউট হন রুমানা , এক বলে ২ রান দরকার হলে জাহানারা ইসলাম ২ রান নিয়ে ম্যাচ জিতে নেন। ২০ ওভারে বাংলাদেশ ৭ উইকেট হারিয়ে নিজেদের ১ম ফাইনাল জিতে ইতিহাস সৃষ্টি করে বাংলাদেশের মেয়েরা

পরবর্তীতে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের বোলারদের দারুণ বোলিংয়ের সামনে একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে ভারত। রুমানা, সালমা, খাদিজাদের দুর্দান্ত স্পেলে অধিনায়ক হারমানপ্রীত কাউর ছাড়া আর কেউই বলার মতো রান করতে পারেননি।

হারমানপ্রীত ৪২ বলে ৫৬ রানের ইনিংসটি না খেললে হয়তো আরো কম রানে গুঁটিয়ে যেতো ভারত। মূলত তাঁর দৃঢ়চেতা ব্যাটিংয়ের কল্যাণেই ৯ উইকেটে পুরো ওভার শেষ করতে সক্ষম হয়েছে ভারত। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১ রান করেছেন মিতালি রাজ এবং ভেদা কৃষ্ণামূর্তি।

এছাড়াও ১০ রান এসেছে ঝুলন গোস্বামীর ব্যাট থেকে। বাংলাদেশের পক্ষে খাদিজা তুল কুবরা ২৩ রানে ২টি এবং রুমানা আহমেদ ২২ রানে ২টি উইকেট শিকার করেছেন। এছাড়াও ১টি করে উইকেট পেয়েছেন সালমা খাতুন এবং জাহানারা আলম।

বাংলাদেশ একাদশ-

শামীমা সুলতানা, আয়েশা রহমান, ফারজানা হক, সানজিদা ইসলাম, ফাহিমা খাতুন, জাহানারা আলম, নিগার সুলতানা, রুমানা আহমেদ, সালমা খাতুন (অধিনায়ক), খাদিজা তুল কুবরা, নাহিদা আকতার।

ভারত একাদশ-

মিতালী রাজ, স্মৃতি মানদানা, হারমানপ্রীত কাউর (অধিনায়ক), দীপ্তি শর্মা, ভেদা কৃষ্ণমূর্তি, আনুজা পাতিল, ঝুলন গোস্বামী, তানিয়া ভাটিয়া, একতা বিস্ত, শিখা পান্ডে, পুনম যাদব।

২০ অভারের এই ম্যাচে ভারতকে ৩ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ । ব্যাটে বলে অসাধারন অবদান রাখায় ম্যান অফ দা ম্যাচ হয়েছেন রুমানা আহমেদ ।

Facebook Comments