Thursday , June 21 2018
Breaking News

ইমরান সরকারকে ছেড়ে দিয়েছে র‌্যাব

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে ছেড়ে দিয়েছে র‌্যাব। বুধবার রাত ১১টার দিকে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এর আগে বিকেলে রাজধানীর শাহবাগ থেকে তাকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল র‍্যাব।

ইমরান এইচ সরকার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, র‍্যাব তাকে ছেড়ে দিয়েছে। তিনি বাসার দিকে যাচ্ছেন।
তিনি জানান, র‍্যাব তাকে নানা বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। আন্দোলন-সংগ্রাম নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করেছে।

বুধবার বিকেলে গণজাগরণ মঞ্চের ঘোষিত সমাবেশে যোগদানে জন্য শাহবাগ এলে সেখান থেকে তাকে নিয়ে যায় র‌্যাব। ‘বিচার বহির্ভূত হত্যা’র প্রতিবাদে এ সমাবেশ ডাকা হয়েছিলো।

গণজাগরণ মঞ্চের অন্যতম সংগঠক রিয়াজুল আলম ভূঁইয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচিতে অংশ নিতে বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টায় ইমরান শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে আসেন। তিনি গাড়ি থেকে নামার সঙ্গে সঙ্গে র‌্যাব সদস্যরা জোর করে তাকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যান।’

তবে ঠিক কী কারণে তাঁকে আটক করা হয়েছে, তা নিয়ে পরিষ্কার কিছু জানায়নি র‍্যাব। তবে প্রাথমিকভাবে র‍্যাব জানিয়েছে, অনুমোদন ছাড়া কর্মসূচি পালন করতে যাওয়ায় ইমরানকে আটক করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল চারটার দিকে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা মাদকবিরোধী অভিযানের নামে নির্বিচারে মানুষ হত্যা বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু একই স্থানে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের মানববন্ধন থাকায় তা পিছিয়ে সাড়ে চারটায় নেওয়া হয়।

বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটেরে দিকে অনুষ্ঠানস্থলে আসেন ইমরান এইচ সরকার। এ সময় জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে সাদাপোশাকের আট নয়জনের একটি দল ইমরানকে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। ইমরানকে তুলে নিয়ে যাওয়ার সময় তাতে বাধা দেন গণজাগরণ মঞ্চ ও ছাত্র ইউনিয়নের নেতা-কর্মীরা।

এ সময় সাদাপোশাকের ওই দলটি মাইক্রোবাসের সামনে র‍্যাবের পরিচয়–সংবলিত একটি কাগজ লাগিয়ে দেয়। পাশাপাশি কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের লাঠিপেটাসহ ধাওয়া দেন র‍্যাবের সদস্যরা। এতে দীপক শীল নামে ছাত্র ইউনিয়নের এক নেতাকে আহত হতেও দেখা যায়। ঘটনার সময় একই স্থানে পুলিশের অর্ধশত সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments