Thursday , June 21 2018
Breaking News

মেয়েকে দিয়ে দেহ ব্যবসা, মা ও সৎবাবা গ্রেফতার

বরগুনায় এক তরুণীকে দেহ ব্যবসা করতে বাধ্য করার অভিযোগে তার মা ও সৎবাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে সদর উপজেলার কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের আঙ্গারপাড়া থেকে লাইলী বেগম (৪৫) ও তার দ্বিতীয় স্বামী খালেক মোল্লাকে (৫৫) গ্রেফতার করা হয়।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ওই তরুণীর বয়স দুই বছর হওয়ার আগেই তার বাবার মৃত্যু হয়। এরপর দ্বিতীয় বিয়ে করেন তার মা। তিনি স্থানীয় একটি মাদরাসায় সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। এরপর থেকেই তাকে জোর করে দেহ ব্যবসা করতে বাধ্য করা হয়। মা ও সৎবাবার নির্দেশনায় ওই তরুণীকে দেহ ব্যবসা করতে হতো।

দীর্ঘ ১০ বছর ধরে এমন কাজ করার একপর্যায়ে গর্ভবতী হয়ে পড়েন ওই তরুণী। গর্ভপাত করানোর জন্য ওই তরুণীকে গর্ভপাতের ওষুধ খাওয়ানো হয়। এর ফলে গর্ভের সাত মাসেই এক কন্যা শিশু প্রসব করেন ওই তরুণী। কিন্তু জন্মের সঙ্গে সঙ্গেই শিশুটিকে হত্যা করে বাড়ির পাশের এক ঝোপে মাটিচাপা দেন লাইলী ও খালেক মোল্লা।

এ ঘটনার তিন দিন পর গতকাল (সোমবার) রাতে আবারও দেহ ব্যবসা করতে ওই তরুণীকে চাপ দেন মা ও সৎবাবা। কিন্তু অপারগতা প্রকাশ করলে ওই তরুণীকে শারীরিক নির্যাতন করেন তারা। নির্যাতনের একপর্যায়ে ওই তরুণীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করেন। পরে থানায় গিয়ে মামলা করেন ওই তরুণী।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম মাসুদুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় ওই তরুণী গতকাল রাতে একটি মামলা করেছেন। অভিযুক্ত লাইলী বেগম ও তার স্বামী খালেক মোল্লাকে ওই রাতেই গ্রেফতার করা হয়েছে।

Facebook Comments